Select Page

ফ্রিল্যান্সার ডট কমের একটা জেনুইন ফেইক প্রোজেক্ট নিয়ে আলোচনা করবো ।

by Sep 11, 2021Basic Freelancing0 comments

আমি প্রায় ৪ চার বছর এর বেশি সময় ধরে এই মার্কেটপ্লেসে আছি । আগে আমিও না বুঝে কত রকম বিড করেছি । বিড করার সাথে সাথে ইনবক্সে মেসেজ করতো “আমি যদি কাজ করতে চাই তাহলে আমাকে আগে প্রোজেক্ট এর জন্য ফি ডিপোজিট করতে হবে আর সেটা অবশ্যই স্ক্রিল পেমেন্ট এর মাধ্যমে”
 
কিন্তু সেই ৪ বছর আগের এই ধান্দাবাজী সিস্টেম এখনো আগের মতই আছে। প্রোজেক্ট এর টাইটাল হলো “Re-type a PDF into Word”
প্রোজেক্ট এর বাজেট দেওয়া ২৫০-৭৫০ ডলার। :p ক্লায়েন্ট ইন্ডিয়ান ।
দুঃখিত আমি কোনো ইন্ডিয়ান ভাইকে ছোট করছি না ।
 
চলেন দেখে নেওয়া যাক এই ফেইক প্রোজেক্টে কারা বেশি বিড করে।
আমি এই টাইটাল “Re-type a PDF into Word” এর ৩টা প্রোজেক্ট এর বিড ডিটেইলস শেয়ার করবো ।
প্রথম ইমেজে দেখুন একজন ফ্রিল্যান্সার ভেরিফাইড স্ট্যাটাস ধারী ব্যক্তি বিড করেছে ।
Fake project Discussion

Fake project Discussion

আমি জানি না উনি আসলে ভুল করে বিড করেছে নাকি ইচ্ছা করেই করেছে জানি না ।
এখানে প্রোজেক্টের লিংক যদি দেখতে চান তাহলে দেখে আসতে পারেন কে কে বিড করেছে। https://www.freelancer.com/projects/pdf/type-PDF-into-Word-31457255/proposals
এই সব প্রোজেক্টের ম্যাক্সিমাম নতুন ফ্রিল্যান্সারদের বিড দেখা যায় । কারণ কাজ সহজ তারা সহজেই করে ফেলতে পারবে এমন ভেবেই বিড করে থাকে । কিন্তু তারা যে ধরণের নক পায় তাহলো “আপনাকে কজা করতে হলে অবশ্যই প্রোজেক্টের সিরিউরিটি ফি দিয়ে কাজ করতে হবে”
এখানে একটা ব্যাপার ক্লিয়ার করে দিচ্ছি “ফ্রিল্যান্সার বা অন্য কোনো মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হলে কোনো ধরণের সিকিউরিটি ফি দিয়ে কাজ করতে হয় না । আশা করি ব্যাপারটা মাথায় রাখবেন ।”
আমি ৩টা প্রজেক্ট ভালো ভাবে দেখলাম মোটামুটি সবাই নতুন প্রোফাইলের ওনার । ৩টা প্রোজেক্ট দেখতে চাইলে ৩ টা লিংক থেকে দেখে নিতে পারেন
একটা ব্যাপার লক্ষ্য করেছেন কি? ৩টা প্রজেক্টই ইন্ডিয়ান ক্লায়েন্টের :p
যাইহোক। এখন চলুন দেখা যাক কেমন ক্লায়েন্টের প্রোজেক্টে বিড করা যায়।
  1. দেখে নেবেন আপনি ক্লায়েন্টের প্রোজেক্টে বিড করছেন সে এর আগে কোনো কাজ করিয়ে রিভিউ পেয়েছে কিনা।
  2. ক্লায়েন্ট আগে থেকে কাজ করিয়েছে কিনা ।
  3. ক্লায়েন্টের পেমেন্ট ম্যাথড ভেরিফাইড কিনা ।
  4. ক্লায়েন্টের মার্কেটপ্লেসে ডিপোজিট করেছে কিনা ।
  5. প্রোফাইল কমপ্লিট না করলেও সমস্যা নেই ।
  6. ফোন নাম্বার ভেরিফাইড কিনা।
  7. সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ক্লায়েন্টের একাউন্ট “KYC” ভেরিফাইড কিনা।
এই সব গুলো যদি ভেরিফা করা থাকে তাহলে আপনি চোখ বন্ধ করে বিড করতে পারেন সমস্যা নেই ।
সুতরাং, সতর্ক থাকবেন উলটা পালটা কারো প্রোজেক্টের বিড করলেন কিনা। মার্কেটপ্লেসে নিজেকে সেফ রেখে কাজ করা অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার । আশা করি এই বিষয়গুলো খেয়াল রেখে কাজ করবেন ।
 
কোনো ধরণের সমস্যা হলে আমাদের গ্রুপে পোস্ট করতে পারেন আমরা চেষ্টা করবো আপনাকে সর্বোচ্চ সহযোগীতা করার।
 
ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন, আল্লাহ্‌ হাফেজ ।

এম এইচ মামুন

{শেখাও}, {আর না হলে শেখো} {যদি চুপ চাপ থাকো} {তাহলে তোমার ফাঁকা খুলি দিয়ে কি হবে?}

Hits: 7

Need Help?

Get In Touch With Us

Find Us in Socials

Use this Form

2 + 13 =

Pin It on Pinterest

Share This