Select Page

১৮ টি উপায়ে ফেসবুক থেকে ইনকাম এর উপায় ২০২১

by Sep 4, 2021Online Tips0 comments

আজকে বলবো কি কি উপায়ে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা সম্ভব। পৃথিবীর অন্যতম বড় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম হলো ফেসবুক। আমরা শুধু  ফেসবুক-কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বুঝি। 

কিন্তু আমরা কি জানি ? ফেসবুক-কে ব্যবহার করে  মানুষ এখন অনলাইন থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। আবার অনেকেই আজকাল ফেসবুক পেজ ও গ্রুপ বানিয়ে ফেসবুকের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ফেসবুক থেকে আয় করছে। এখন অনেকে  ফেসবুক পেজে ইউটিউবের মত ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করছে । এমনকি  ফেসবুকে আপনার জনপ্রিয়তা তৈরী হলে  ভিন্ন ভিন্ন  উপায়ে আপনি টাকা আয় করতে পারবেন ফেইসবুক থেকে । আমরা এখন নিম্নে এই বিষয়গুলোবর্ণনা করব।যদি আপনি জানতে চান ফেইসবুক থেকে কি কি উপায়ে টাকা আয় করা সম্ভব। তাহলে আমাদের পোস্টটি মনোযোগ  সহকারে শুরু থেকে পড়ুন।আশা করি এর মাধ্যমে আপনি  মাসে কিছু টাকা আয় করতে সক্ষম হবেন ।

 

১. ফেসবুক চ্যাটবট তৈরি করতে পারেন 

 

বিপণন মাধ্যম হিসাবে আজ কাল ফেসবুক ম্যাসেন্জারের নিয়মকানুনগুলি একের পর এক বিকশিত হচ্ছে, বেড়েই চলছে চ্যাটবটগুলির জনপ্রিয়তা

আপনার ইমেল তালিকার বিকল্প হিসাবে বিবেচনা করে আপনি যদি  ময়েন চ্যাট অথবা চ্যাটফুয়েলের এই সার্ভিসের দ্বারা এ সব তৈরির দক্ষতা লাভ করতে পারেন। তাহলে এটি আপনি আপনার অন্য কাজেও লাগাতে অফার করতে পারবেন। 

 

২.এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়

বর্তমানে ফেসবুকের দ্বারা  অনেক  কোম্পানির এফিলিয়েট লিংক শেয়ার করছে এবং তা বিক্রি করে আয় করছে । এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনেকেই ফেসবুকের মাধ্যমে  ঘরে বসে আয় করছেন লক্ষ লক্ষ টাকা। এই কাজটা  করতে হলে প্রথমেই আপনাকে যে ওয়েবসাইট বা যে প্রোডাক্টের এফিলিয়েট মার্কেটিং করার ইচ্ছা  সে প্রোডাক্ট এর লিঙ্ক এনে ফেসবুকে তা  প্রমোট করতে হবে। আপনি ফেসবুকের মাধ্যমে যতবেশি প্রচার ও প্রসার হবে  আপনার এফিলিয়েট লিংক থেকে তত বিক্রয় হবে।এটা  যত বেশি বিক্রয় হতে থাকবে  আপনার কমিশন ততবেশি  বাড়তে থাকবে।

এমন অনেক মার্কেটার আছে যারা Amazon, Ebay, Ali express এর মত বড় বড় এফিলিয়েট মার্কেট প্লেসে এর এফিলিয়েট লিংখ তৈরি করে ফেইসবুক থেকে আয় করছেন। 

 

৩.ব্লগ বা ওয়েবসাইটের প্রচার করে আয়

যদি আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করেন । তাহলে আপনার সেই টাকার  পরিমাণ কয়েকগুণ বৃদ্ধি করতে সক্ষম এই ফেসবুক। কেননা এর মাধ্যমে ব্লগ বা ওয়েবসাইট প্রচার করলে খুব ভাল মানের ভিজিটর পাওয়া যাবে। আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের কনটেন্টগুলো ফেইসবুক পেজ বা গ্রুপে শেয়ার করা যাবে । অনেকেই আবার কৌতূহল নিয়ে  সেই লিংক বা কনটেন্টে ক্লিক করে ভিজিট করে । তাছাড়া  এমন অনেক মার্কেটার আছে। আপনার পণ্য বিক্রির অন্যতম সহজ মাধ্যম হবে যদি আপনার ই-কমার্স সাইট থাকে। 

 

 

 

৪.ফেইসবুক Page মনিটাইজ করে আয়

বর্তমানে নতুন একটি  ফিচার যোগ  হয়েছে ফেসবুকে যেখানে যুক্ত হয়ে আপনি ছোট ছোট ভিডিওগুলোকে মনিটাইজ করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন। আপনি ফেসবুক মনিটাইজেশন করে ইনকাম করতে ইচ্ছুক হলে কিছু শর্ত পূরণ করলেই আপনি  ইনকাম শুরু করতে পারবেন ।ফেইসবুক  ইউটিউবে ইনকামের মতো একটি  ইনকামের  কসুযোগ করে দিয়েছে।অর্থাৎ ফেসবুকে যেমন  অ্যাড ব্র্যাক এর বিজ্ঞাপন মনিটাইজ করে আনলিমিটেড ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে তেমনি ইউটিউবে গুগল অ্যাডসেন্স মনিটাইজ করে টাকা ইনকাম করা যায়।

 

ফেসবুক মনিটাইজেশন এর জন্য শর্ত সমূহঃ

যদি আপনি ফেসবুকে ‍ads Break মনেটাইজ করে আয় করতে ইচ্ছুক হন তাহলে  আপনাকে আগে নিম্নে শর্তগুলো পূরণ করতে হবে।

  • 3 মিনিটের একটি ভিডিওর মধ্যে মিনিমাম 1 মিনিট ভিউ হতে হবে
  • কমপক্ষে 10000 লাইক থাকতে হবে
  • আপলোড করা ভিডিও গুলো অবশ্যই ক্যাপচার করা হতে হবে
  • একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে
  • কমপক্ষে 30000 ভিউ হতে হবে
  • ফেসবুকে আপলোড করা ভিডিও গুলো ইউনিক হতে হবে

উপরের শর্তগুলো আপনার ফাসেবুক পেজে  বিদ্যমান থাকলে আপনি ফেইসবুক স্টুডিওর মাধ্যমে Ads breack মনিটাইজ করে আয় করতে পারবেন এবং এটা থেকে আনলিমিটেড ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে।নলিমিটেড ইনকাম করার সুযোগের  সাথে  রয়েছে বেশ কিছু সীমাবদ্ধতা।

 

৫. সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার

সোস্যাল মিডিয়া আছে এবং ভবিষ্যতে খুব শিগ্রই  এর বিলুপ্তি ঘটবে না এবং আপনি সোস্যাল মিডিয়া বিষয়ে এক্সপার্ট হতে পারেন।

ফেসবুক বিষয়ে  ভালো জ্ঞান প্রয়োগ  করে সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হওয়া যায় । বিভিন্ন সেলিব্রেটি ও কোম্পানী রয়েছে যাদের ফেসবুক পেজ ও গ্রুপ ব্যবস্থাপনার জন্যে লোক নিয়েগ দেয়া হয় ।আপনি তাদের একাউন্ট দেখা সোনা  করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।কিন্তু  সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হওয়ার ক্ষেত্রে সোস্যাল সাইট ছাড়াও আরো কিছু বিষয়ে জ্ঞান রাখা প্রয়োজন ।

যেমন:- সামান্য ভিডিও এডিটিং,গ্রাফিক্স ডিজাইন ইত্যাদি। (প্রো: টিপস:- মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টে আছে LinkedIn এমন ব্যক্তিদের সাথে পরিচিত হন।)

 

৬.Instant Article থেকে ফেসবুকে আয় করুন

ফেসবুকে আপনার ওয়েবসাইটের আর্টিকেল প্রকাশ করে টাকা আয় করতে পারেন । ফেসবুক Instant Articles নামের একটি প্রোগ্রাম লঞ্চ করেদিচ্ছে । আপনার সাইটের আর্টিকেলে যেখানে গুগলের মতো এড দেখানো হয় ।

Instant Articles হলো ফেইসবুক এর মোবাইল Publishing টুল। যার সাহায্যে একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগের ডিজাইনকে কাষ্টমাইজ করে অপটিমাইজ করার মাধ্যমে খুব কম  সময়ে লোড করা  হয়। অপটিমাইজ করার সময় ফেইসবুক Instant Articles ওয়েবসাইটের ডিজাইনকে কোন রকম গুরুত্ব ছাড়াই শুধুমাত্র আর্টিকেল গুরুত্ব দিয়ে একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইটের কনটেন্ট দ্রুত লোড নিতে সাহায্য করে। 

 

৭.পেজ বিক্রয় বা প্রমোশন করে আয়

ফেসবুক পেজ বানিয়ে সেগুলোর লাইক বাড়িয়ে বিভিন্ন কম্পানির কাস্টমারের নিকট বিক্রয় করা যাবে। এভাবে তারা আপনার ফেসবুক পেজটি ব্যবহার করে  বিভিন্ন ক্ষেত্রে মার্কেটিং করতে পারবে।। এছাড়া অন্য একটি  পেজ আপনার পেজের মাধ্যমে প্রমোট করে তাদের পেজে লাইক বাড়ানোর মাধ্যমে  টাকা ইনকাম করতে পারবেন । এমনকি বর্তমানে অনেক লোকাল কোম্পানি আছে যারা বিভিন্ন কোম্পানি বা মার্কেটের নিকট পেমেন্ট করে থাকে তাদের ফেসবুক পেজের  লাইক বাড়ানোর জন্য। 

 

৮.ফেসবুক লাইক বিক্রি করে আয়ঃ-

ফেসবুকে লাইক বিক্রি করাটা একটি বিতর্কিত বিষয় হলেও এরপরেও কিন্তু অনেকেই ফেসবুকে লাইকে এনে দিয়ে টাকা দেয়। এরকম অনেক জব রয়েছে ফাইভারার মার্কেট-প্লেসে । যখন  আপনার কাছে অনেক জনপ্রিয় একটি ফেসবুক পেজ বিদ্যমান থাকবে তখনি আপনার পেজে অনেক বেশি দেখতে পাবেন,আর তখন সব অনলাইন মার্কেটার আপনাকে তাদের পেজে লাইক বাড়ানোর জন্য অথবা বিভিন্ন ওয়েবসাইটের পোস্ট শেয়ার করে সেটা মানুষের কাছে পৌঁছানোর  জন্য অফার দিবে । তখন এভাবে  আপনি টাকার বিনিময় তাদের নিকট হতে তাদের ফেসবুক পেজ অথবা ওয়েবসাইটের পোস্ট আপনার ফেসবুক পেজে শেয়ার করে ক্লায়ান্টের কাছ  থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। সাধারণত বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটারগণ ১০০০ লাইকের পরিবর্তে  ৫০০-৭০০ টাকা পেয়ে থাকেন। ফেসবুক পেজে আপনার  প্রচুর পরিমানে ফলোয়ার থাকলে , আপনি  ১০০০ লাইক পাইয়ে  দেয়ার ক্ষেত্রে শুধুমাত্র  মাত্র ৫ মিনিটেই কাজ হয়ে যাবে ।

 

৯.লোকাল বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয়ঃ

ভালো মানের ফেইসবুক থাকলে বিভিন্ন লোকাল কোম্পানিকে প্রমোট করে টাকা আয় করা যাবে। যদি আপনার ভালো একটি পেজ থাকে  তাহলে অনেক কোম্পানি আপনাকে আপনার পেজে তাদের কোম্পানিকে প্রচার প্রসারের জন্য আপনাকে প্রস্তাব দিবে এবং আপনার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে  তাদের বিজ্ঞাপন গুলো প্রমোট করে দিয়ে টাকা  আয় করতে পারবেন।

 

১০. ড্রপশিপিং বিজনেস

অনেকের ভুল ধারণা ড্রপশিপিং ব্যবসা করতে যে ওয়েবসাইট লাগবে বা ওয়েবসাইট বাদে ড্রপশিপিং করা যাবেনা আসলে বিষয়টা এমন না। ওয়েবসাইটের অনুপুস্থিতে ফেসবুক পেজ দিয়েই ড্রপশিপিংয়ের ব্যবসা করা যাবে ।

ধন্যবাদ অ্যামাজনকে, আপনার অর্ডার নেয়ার পর অ্যামাজনের কাছে সেটাকে প্লেস করে দেয়া হয়।  তারা সেটা তৈরি করে এবং বাড়িতে পৌছে দেয়া পর্যন্ত দায়িত্ব নেয় তারা ।

আপনি ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ওর্ডার নিয়ে ড্রপশিপিং শুরু করতে পারেন।

 

১১.ফ্রিল্যান্সিং করে ফেসবুক থেকে আয়

 

নির্দিষ্ট কিছু ভালোমানের গ্রুপ আছে  যেখানে ফ্রিল্যান্সিং জব পাওয়া যায়। আপনি যেসব  বিষয়ে খুব ভালো পারদর্শী সে বিষয়টা দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করে  ফেসবুক থেকে টাকা  আয় করতে পারবেন । যেমন:ফ্রিল্যান্স ডিজাইনিং, ফ্রিল্যান্স রাইটিং,ফ্রিল্যান্সিং সোশাল মিডিয়া ফ্রিল্যান্স ফটোগ্রাফি ইত্যাদি। কিন্তু গ্রুপ বাছাইয়ের  ক্ষেত্রে সবচেয়ে অ্যাকটিভ গ্রুপগুলো বাছাই করতে হবে। ভালো গ্রূপ গুলো আপনি দেখেই বুঝতে পারবেন।

 

১৩.বন্ধুকে রেফার করে আয় করুন

আপনারা জানেন কি মার্কটিংয়ের জগতে সবচেয়েভালো এবং কার্যকর মার্কেটিং পলিসি মাউথ মার্কেটিং। কোম্পানীরা এইটা  খুব ভালোভাবে বুঝতে পেরে গাছে । তাই তারা বন্ধুদেরকে  তাদের সার্ভিসে রেফার উইথ ফ্রেন্ড নামের আপশন রাখছে। 

অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের আয়ের এপস ও বিভিন্ন  ধরণের অনলাইন শপ রয়েছে, যারা রেফার উইথ ফ্রেন্ড মার্কেটিং ব্যবহার করে থাকে । আপনি  তাদের থেকে রেফারেন্স লিংক গুলো  নিয়ে এবং সেগুলো  বন্ধুকে দিতে পারেন অথবা গ্রুপে রেফারেন্স লিংক শেয়ার করতে পারেন।।যত বেশি লোক ওই রেফার লিংক ব্যবহার করবে তাদের থেকে ততো বেশি কমিশন পেতে থাকবেন। 

 

১৪.ফেসবুক গ্রুপ

 

ফেইসবুক গ্রূপ  থেকে টাকা আয় করার ক্ষেত্রে আপনার জন্য কিছু শর্ত রয়েছে । আর আপনি চাইলে  বর্তমানে অনেক বড় বড় গ্রুপের এডমিন ফেসবুক গ্রুপ থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ।  এখন অনলাইনে পন্য কেনাকাঠার ক্ষেত্রে অধিক জনপ্রিয়  হয়ে উঠেছে ফেইসবুক গ্রূপ  । ফেসবুকে এরকম  হাজারো গ্রুপ আছে যেখানে লক্ষ লক্ষ মেম্বার রয়েছে ।যদি  আপনার কোন ব্লগ থাকে ব্লগের পোস্ট বিভিন্ন গ্রুপে  সাথে শেয়ার করার মাধ্যমে  আপনার ব্লগের আয় খুব সহজে বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এছাড়া  ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের ক্রয় বিক্রয়ের  গ্রুপ আছে । সেই গ্রুপগুলোতে জয়েন হয়ে আপনার প্রোডাক্ট  বিক্রি করে ফেসবুক থেকে আয় করতে পারেন। 

 

১৫. ব্লগ কন্টেন্ট এর আইডিয়া নিন

নতুন ব্লগিং শুরু করতে গিয়ে কন্টেন্ট এর আইডিয়া খুঁজে না পেলে আপনি বিভিন্ন ফেইসবুক গ্রূপের সাহায্য নিতে পারেন। বিভিন্ন ব্লগিং কমিউনিটিতে যুক্ত হয়ে , তাদের নিয়ম কানুন  মেনে পোস্ট করে দেখেন আপনি শত শত কন্টেন্ট আইডিয়া পেয়ে গেছেন। 

 

১৬.ফেসবুক ভিডিও থেকে আয়

 

লাইভ ও ভিডিও করে ফেইসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। । ফেইসবুক থেকে  টাকা আয় করার এই সুবিধাকে Facebook Ads Break বলা হয়  । অর্থাৎ আপনার অ্যাড ফেসবুকে  দেখালে , সেই খান থেকে বা  অ্যাড থেকে আয়ের কিছু অংশ আপনাকে দেয়া হবে ।এরকম সুবিধা পেতে চাইলে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে । আপনার পেজটি  প্রথমত তাদের নিকট  মনোনীত হতে হবে। এবিষয়ে শর্তসূমহ  নিম্নে আলোচনা করা হলো:- 

 

  • ফেসবুক এর Partner Monetization Policies মেনে ভিডিও তৈরি করতে হবে। 
  • শেষ ৬০ দিনে আপনার ফেসবুক পেজের ভিডিওতে কমপক্ষে ৩০,০০০ ভিউস থাকতে
  • আপনার ফেসবুক পেজে ১০,০০০ ফলোয়ার থাকতে হবে। 
  • শেষ ৬০ দিনে ১৫,০০০ হাজার মানুষের নিকট আপনার পোস্ট/ভিডিও পৌছাতে হবে।
  • আপনার বয়স অবশ্যই কপক্ষে ১৮ বছর হতে হবে।

 

 

১৭.বিশেষজ্ঞ হিসেবে গ্রুপে জয়েন করুন

ফেসবুকে আয় করতে চাইলে এই বিষয়টি আপনি বেছে নিতে পারেন।এটি  খুবই ভালো একটি উপায়। আপনি কোনো বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হলে  সে বিষয়ের যেকোনো গ্রুপে যোগ দিতে পারবেন। 

যেমন ধরুন করিম একজন এপস ডেভলপার। সে এশিয়ার এপস ডেভলপার কমিউনিটিতে যুক্ত হলো । সেই কমিউনিটিতে রহিম নামের একজন এপসের একটা সমস্যা দেখা দিলে সেটা নিয়ে   ফেসবুকে  পোস্ট করে , করিম সেই সমস্যার  সমাধান করে দিল।

ফ্রিতে করিম এইটা করায়  কি লাভ হল তার ? এই রকম প্রশ্ন যদি আপনার মনে জাগে  তাহলে আপনি মনোযোগ সহকারে এটা  পড়ছেন। তাহলে  চলুন আমরা  জেনে নেই , লাভটা কি ছিলো।

ঐ গ্রুপে রহমান নামের একজন লোক  ছিলো যার একটি এপস দরকার ছিল । করিমের সমাধান করার দক্ষতা দেখে সে পরবর্তী প্রজেক্টে করিমকে হায়ার করে নিলো । করিমের লাভটা কোথায় হলো  বোজা গেল । আপনি এরকম অনেক কাস্টমার পাবেন এই  গ্রুপের মাধ্যমে।

 

১৮. ‘বাগ বাউন্টি‘ হিসাবে ফেসবুক থেকে আয়

ইন্টারনেট বিশাল একটা মাধ্যম এরপরেও এর  কোনোকিছু পারফেক্ট নয়। যে কোনো জিনিস যত ভালোই হোক না কেন  সবকিছুর ভিতরে কিছু না কিছু দুর্বলতা রয়েছে । এপস ও  ফেসবুক ওয়েবসাইটের   ভিতরের দুর্বলতা ধরার জন্য ফেসবুকের বাগ বাউন্টি প্রোগ্রাম।

যদি তাদের ওয়েবসাইট বা এপসে কোনো দুর্বলতা ধরতে আপনি সক্ষম হন , তাদেরকে বাগ বাউন্টি প্রোগ্রমের দ্বারা  ডিটেইলসে বলুন।

বাগ  বাউন্টি প্রোগ্রামের  সর্বোনিম্ন ৫০০ ডলার দেয়া হয় । কিন্তু সর্বোচ্চ এমাউন্টের কোনো সংখ্যা উল্লেখ করে বলা হয়নি। 

শেষ কথা 

পৃথিবীতে কোন কাজকেই  সহজ বলা যায় না । এমনকি কেউ কোনো কাজ পৃথিবীতে শিখে আসে না  বরং কাজ করতে করতে তা সহজ হয়ে যায়।তাই  ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার ইচ্ছা থাকলে  বসে না থেকে আজই শুরু করে দিতে পারেন।

যদি আপনি  বুদ্ধি খাটিয়ে ফেসবুকের মাধ্যমে ভালো একটি  মার্কেটিং  চালু করতে পারেন তাহলে ফেসবুক থেকে প্রতি মাসে 20 হাজার টাকা থেকে শুরু করে এমনকি  2  লাখ টাকার অধিক টাকা আয় করতে পারবেন  খুবই সহজে 

 

জিজ্ঞাসা ও উত্তর :

ইউটিউবের ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করে আয় করা যায় ?

এখন পর্যন্ত ফেইসবুক ইউটিউবে আপলোড হওয়া ভিডিও ফেইসবুকে আপলোড করে  দিচ্ছে। তবে অন্যের ভিডিও ইউটিউব থেকে ডাউনলোড করে ফেসবুকে আপলোড করা যাবে না। 

 

অন্যের ভিডিও ইউটিউব থেকে ডাউনলোড করে ফেসবুকে আপলোড দিলে ফেইসবুক বুজতে পারবে 

ফেসবুকে ওই ভিডিও আগে থেকে আপলোড না দেয়া থাকলে বা যার ভিডিও দেয়া হবে ,সে রিপোর্ট না করলে ফেইসবুক তা কোনো ভাবে বুঝতে পারবে না। আগে অথবা পরে ধরা পড়তেই হবে। 

কোনো কিছুই অনলাইনে লুকিয়ে রাখা যায় না। যে ভাবেই হোক তা একসময়  প্রকাশ পাবে। আর ডিজিটাল কন্টেন্ট চুরি করে সৃষ্টি কর্তার কাছে জবাব দিহি করতেই হবে।  

 

ফেইসবুক থেকে কত টাকা আয় করা যায় ?

ফেইসবুক থেকে টাকা আয় করাটা নির্ভর করে আপনার কাজের দক্ষতার ওপর। আপনার কাজের দক্ষতা ভালো হলে আপনি মাসে ১,০০০ থেকে ১০০,০০০ টাকাও আয় করতে পারবেন। 

 

কত টাকা হলে ফেইসবুক পেমেন্ট করে ?

যখন ১০০ ডলার হয় তখন ফেসবুক আপনার একাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করে দেয়।

 

 ফেইসবুক থেকে যায় করতে কি কি লাগে ?

যদি আপনার মধ্যে সবচেয়ে বড় জিনিসটি  থাকে তাহলো ধোর্য্য ও কাজ করার ইচ্ছা। কম্পিউটার না  থাকলে মোবাইল দিয়ে অপদতো কাজ শুরু করতে পারবেন। তবে কম্পিউটার হলে ভালো হবে। 

 

Hits: 33

Need Help?

Get In Touch With Us

Find Us in Socials

Use this Form

14 + 15 =

Pin It on Pinterest

Share This